ফোর-জি লাইসেন্স হস্তান্তর ও সেবা আজ থেকেই

ফোর-জি লাইসেন্স হস্তান্তর ও সেবা আজ থেকেই

নিজস্ব প্রতিবেদক:-বহুল প্রতীক্ষিত ফোর-জি বা চতুর্থ প্রজন্মের মোবাইল-ইন্টারনেট সেবার তরঙ্গ নিলাম হয়েছে। আজ লাইসেন্স হস্তান্তর করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, লাইসেন্স পাওয়ার পরপরই মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো ক্রমান্বয়ে ফোর-জি সেবা চালু করবে।

বিটিআরসি ‍সূত্র জানিয়েছে, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদের উপস্থিতিতে আজ সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা ক্লাবে মোবাইল ফোন অপারেটরদের কাছে লাইসেন্স হস্তান্তর করা হবে। বিটিআরসি ও মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশ (অ্যামটব) আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি থাকবেন টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার।

২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ফোর-জি ইন্টারনেট সেবা শুরুর পরিকল্পনা ছিল টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের। সেক্ষেত্রে পরিকল্পনা ছিল ২০ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার ফোর-জি সেবার লাইসেন্স হস্তান্তর করা হবে। কিন্তু পরবর্তীতে সেই পরিকল্পনায় পরিবর্তন আনা হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আজ সোমবারই লাইসেন্স হস্তান্তর করা হবে এবং আজ থেকেই মিলবে চতুর্থ প্রজন্মের ইন্টারনেট সেবা বা ফোর-জি।

এর আগে ১৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকা ক্লাবে দুই ব্যান্ডে তরঙ্গ নিলাম অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নিলামে গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মাইকেল ফোলি ও বাংলালিংকের সিইও এরিক অসের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল অংশ নেয়। এতে অংশ নিয়ে চর্তুথ প্রজন্মের ইন্টারনেট সেবার জন্য গ্রামীণফোন ও বাংলালিংক ১৫ দশমিক ৬ মেগাহার্জ তরঙ্গ কিনেছে।

১৮০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডে ৫ মেগাহার্জ তরঙ্গ কিনেছে গ্রামীণফোন। এতে গ্রামীণফোনের তরঙ্গের পরিমাণ দাঁড়ায় ৩৭ মেগাহার্টজ। আর ২১০০ মেগাহার্টজে ৫ মেগাহার্জ ও ১৮০০ মেগাহার্জ ৫ দশমিক ৬ মেগাহার্টজ তরঙ্গ বাংলালিংক কিনেছে।

এর আগে প্রযুক্তি নিরপেক্ষতায় সরকারের আয় হয় ১ হাজার ৪২৫ কোটি টাকা। ১০ শতাংশ ভ্যাট ধরে ১৫ দশমিক ৬ মেগাহার্জ তরঙ্গ ও প্রযুক্তি নিরপেক্ষতায় সরকারের আয় হলো ৫ হাজার ২৬৮ কোটি ৫১ লাখ টাকা।

এদিকে, গতকাল রোববার বিকেলে রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে গ্রামীণফোন আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মাইকেল ফোলি জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে রাজধানীর কয়েকটি স্থানে ১৯ ফেব্রুয়ারি, সোমবার সন্ধ্যায় গ্রামীণফোনের ফোরজি সেবা চালু হবে।

ফোলিও বলেন, ‘১৯ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিকভাবে ফোরজি লাইসেন্স হস্তান্তর করবে বিটিআরসি। লাইসেন্স পাওয়ার ঠিক ১৫ মিনিটের মধ্যেই দেশে ফোরজি চালু করবে গ্রামীণফোন।’

অবশ্য রাজধানীর কোন কোন এলাকায় ফোরজি সেবা চালু হবে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানা যায়নি। এ বিষয়ে গ্রামীণফোনের ডেপুটি সিইও ইয়াসির আজমান বলেন, ‘রাজধানীর গুলশান, বনানীসহ আরো বেশ কয়েকটি এলাকায় ফোরজি সেবা চালু হতে পারে। তবে অন্যান্য স্থানগুলোর নাম এই মুহূর্তে ডিসক্লোজ (প্রকাশ) করা সম্ভব নয়।’

এ ছাড়া রবির এমডি ও সিইও এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, লাইসেন্স পাওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যে ফোর-জি সেবা চালু করবে রবি।

বাংলালিংকও লাইসেন্স পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফোর-জি সেবা চালু করবে বলে জানিয়েছেন অপারেটরটির এক কর্মকর্তা।

দেশে চালু থাকা ৩০ শতাংশ স্মার্টফোনের মধ্যে ফোর-জি ব্যবহার করা যাবে এমন সেটের সংখ্যা ১০ থেকে ১৪ শতাংশ। তবে ‘লক’জনিত কারণে ১৫ লাখ আইফোন ব্যবহারকারী ফোর-জি সেবা দেরিতে পাবেন। এ বিষয়ে বিটিআরসি সচিব সরওয়ার আলম বলেন, কত দিনের মধ্যে আইফোন ব্যবহারকারীরা ফোর-জি সেবা পাবেন তা সুনির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। তবে ৪/৫ সপ্তাহ সময় লাগতে পারে।

প্রসঙ্গত, নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি ও মোবাইল ফোন অপারেটরদের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, প্রযুক্তি নিরপেক্ষতা এবং নতুন তরঙ্গ কেনার পর ফোর-জি চালু হলে ইন্টারনেটের এক্সপ্রেসওয়েতে প্রবেশ করবে বাংলাদেশ। গ্রাহকের সংখ্যা বৃদ্ধির প্রবণতায় ভয়েস কলড্রপ এড়ানোর পাশাপাশি ইন্টারনেটের দ্রুত গতি পাবে গ্রাহক। এতে ডাউনলোড গতি বৃদ্ধি পাবে।

সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: কামাল উদ্দিন
মোবাইল: ০১৮১৯০৩২০৯০
৬০/বি, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ হইতে প্রকাশিত। মোবাইল: 01819032090, ইমেইল: amaderodhikar@gmail.com