ভারত থেকে বেড়েছে হলুদ আমদানি

ভারত থেকে বেড়েছে হলুদ আমদানি

অধিকার অর্থনীতি ডেস্ক: চার-পাঁচ মাস ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর পাইকারিতে কমতে শুরু করেছে মসলাজাতীয় পণ্য হলুদের দাম। এক সপ্তাহের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে পণ্যটির দাম কমেছে মণে (৩৭ দশমিক ৩২ কেজি) ৩৭৩ টাকা। ভারত থেকে হলুদ আমদানি বাড়ায় পণ্যটির দাম কিছুটা কমেছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। ভোগ্যপণ্যের পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের মসলার আড়তে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত মঙ্গলবার বাজারে প্রতি মণ দেশী শুকনা হলুদ বিক্রি হয় ৪ হাজার ১০৫ থেকে ৪ হাজার ১৭৯ টাকার মধ্যে। এক সপ্তাহ আগেও বাজারে একই মানের হলুদের দাম ছিল ৪ হাজার ৪৭৮ টাকা। বাজারদর অনুযায়ী এক সপ্তাহে পাইকারিতে মণে হলুদের দাম কমেছে ৩৭৩ টাকা।

খাতুনগঞ্জের পাইকারি হলুদ ব্যবসায়ী মোহাম্মদ সেলিম বলেন, গত সপ্তাহের মাঝামাঝি থেকে বাজারে হলুদের দাম কমতে শুরু করে। এক সপ্তাহের মধ্যে বাজারে পণ্যটির দাম মণে প্রায় ৩৫০-৩৮০ টাকা পর্যন্ত কমেছে। দীর্ঘদিন ঊর্ধ্বমুখী থাকায় আমদানিকারকরা ভারত থেকে প্রচুর পরিমাণে হলুদ আমদানি করেছেন। এতে বাজারে সরবরাহ বেড়ে যাওয়ায় দাম কমতে শুরু করেছে। ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, চার-পাঁচ মাস ধরে পাইকারিতে হলুদের দাম বাড়তে থাকে। এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে প্রতি মণ হলুদের দাম ছিল ২ হাজার ২৩৯ টাকা। এর পর পণ্যটির দাম মণে প্রায় ২ হাজার ৩১৪ টাকা পর্যন্ত বেড়ে গত সপ্তাহে মণপ্রতি ৪ হাজার ৪৭৮ টাকায় বিক্রি হয়েছিল।

খাতুনগঞ্জের মসলা ব্যবসায়ী ও হাজী ইসহাক ট্রেডাসের্র স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ সেকান্দার বলেন, বর্তমানে খাতুনগঞ্জে প্রতি কেজি দেশী হলুদ বিক্রি হচ্ছে ১১০-১১২ টাকায়। সপ্তাহের মাঝামাঝি সময়ে এ হলুদ বিক্রি হয়েছে ১২০ টাকায়। আর চার-পাঁচ মাস আগে পণ্যটির দাম ছিল কেজিপ্রতি ৫৮-৬০ টাকা। মসলা আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, চলতি বছর পাহাড়ি অঞ্চলে হলুদের ফলন কম হওয়ায় মৌসুমের পর থেকে বাজারে পণ্যটির দাম ছিল ঊর্ধ্বমুখী। এ সময় ভারত থেকে কিছু পরিমাণ হলুদ আমদানি হলেও চাহিদার তুলনায় তা অপর্যাপ্ত ছিল। ফলে পণ্যটির দাম ছিল টানা ঊর্ধ্বমুখী। ১০ দিন ধরে প্রচুর পরিমাণ ভারতীয় হলুদ বাজারে প্রবেশ করছে। এর পর থেকে বাজারে পণ্যটির দাম কমতে শুরু করে।
এদিকে বাড়তি সরবরাহের ফলে ভারতীয় হলুদের দাম কেজিতে ৩-৪ টাকা পর্যন্ত কমেছে বলে জানান ব্যবসায়ীরা। বর্তমানে বাজারে প্রতি কেজি ভারতীয় শুকনা হলুদ বিক্রি হচ্ছে ৯৬-৯৭ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ১০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে বলে জানা গেছে। সে হিসাবে, এক সপ্তাহে প্রতি মণে ভারতীয় হলুদের দাম কমেছে সর্বোচ্চ ১৫০ টাকা পর্যন্ত। জানা যায়, দেশের প্রায় প্রতিটি জেলায় কম বেশি হলুদের চাষ হয়। তবে বাণিজ্যিকভাবে বেশি চাষ হয় খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবান এলাকায়।

সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: কামাল উদ্দিন
মোবাইল: ০১৮১৯০৩২০৯০
৬০/বি, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ হইতে প্রকাশিত। মোবাইল: 01819032090, ইমেইল: [email protected]